Menu Close

MBps ও Mbps- এর মধ্যে পার্থক্য কী?

MBps ও Mbps- এর মধ্যে পার্থক্য

একটি জিনিস যা প্রায়ই ইন্টারনেট ইউজারদের বিভ্রান্ত করে তা হ’ল মেগাবাইট এবং মেগাবিটের মধ্যে পার্থক্য। এখানে মেগাবিট হচ্ছে Mbps, এবং এটি ব্যবহৃত হয় ফাইল ডাউনলোডের বা আপলোডের গতি বোঝাতে, আর মেগাবাইট হচ্ছে MBps, এটি ব্যবহৃত হয় ফাইলের আকার বোঝানোর জন্য। অনেকে মনে করে যে প্রতি সেকেন্ডে 1 মেগাবিট (1 Mbps) স্পিডের কারণে এক সেকেন্ডে 1 মেগাবাইট ফাইল ডাউনলোড করতে পারবে। কিন্তু বিষয়টি মোটেও এমন নয়।

MBps ও Mbps এর মধ্যে পার্থক্য

বিস্তারিত বলতে গেলে MBps ও Mbps এর মধ্যে পার্থক্য জানতে হবে। আর এর জন্য আমাদের প্রথমে জানা দরকার B ও b মধ্যে পার্থক্য কি?

এখনে দুইটা অক্ষর একই হলেও ছোট অক্ষর ও বড় অক্ষরের মধ্যে একটা বড় ধরনের পার্থক্য রয়েছে।

B=Byte এবং b=Bit.

বড় হাতের অক্ষর হলে সেটা হবে Byte আর ছোট হাতের অক্ষর হলে সেটা হবে Bit.

MB এবং Mb- এর মধ্যে পার্থক্য

MB=Megabyte এবং Mb=Megabit

Bit হচ্ছে ডাটা ট্রান্সফারের সর্বকনিষ্ঠ একক, যার মধ্যে শুধু মাত্র 0 or 1 রয়েছে। গান, মিউজিক, পিকচার যে কোনো ফাইল ইত্যাদির সাইজ পরিমাপ করা হয় MB অর্থাৎ Megabyte দিয়ে।

আর ইন্টারনেটের গতি পরিমাপ করা হয় Mb/Mbps অর্থাৎ Megabits Per Second.

দেখুন এটা তো আমরা জানি যে Bit থেকে Byte বড়।

তো Bit=0 or 1 এবং

1Byte=8Bit.

তারমানে হচ্ছে 8 টি Bit নিয়ে 1 Byte.

তারমানে ফাইলের Megabytes ইন্টানেটের Megabits থেকে 8 গুণ বড়।

ইন্টারনেট ব্যবহারের সময় স্পিড সমস্যা কেনো হয়

তাহলে এবার আলোচনাকরি কেন আমরা পর্যাপ্ত পরিমান স্পিড পাই না কোনো ফাইল ডাউনলোড করার সময়।

এটা সম্পর্কে শুধুমাত্র দু লাইন বললেই বুঝে যাবেন। সেটা হচ্ছে সংযোগ প্রদানকারীররা আপনাকে যে লাইন প্রদান করে তার হিসাব হয় Mb তে অর্থাৎ megabit এ। আর আপনি যেটা ডাউনলোড করেন সেটার হিসাব হয় MB তে অর্থাৎ Megabyte এ। আপনি যদি আপনার ইন্টারনেটের আপলোড স্পিড ও ডাউনলোড স্পিড চেক করবেন তখন দেখবেন সেটা Mbps এ দেখাবে(ছোট হাতের b) অর্থাৎ Megabit Per Second. আর যদি ডাউনলোড তখন সেটা দেখাবে MBps এ (বড় হাতের B) অর্থাৎ Megabyte Per Second.

আমি আগেই বলছি যে কোনো ফাইলের ক্ষেত্রে হিসাব হয় Megabyte এ আর ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে হিসাব হয় Megabit এ।

তো মনে করুন আপনার 1Mbps এর একটি লাইন আছে, তো এখান থেকে আপনি ডাউনলোড স্পিড পাবেন 1÷8=0.125MBps.

অথবা মনে করুন আপনার কাছে 10 Mbps এর একটি লাইন আছে,তো এখান থেকে আপনি এক সেকেন্ডে ডাউনলোড স্পিড পাবেন 10÷8=1.25 MBps.

এভাবে আপনি যদি 1MB File এক সেকেন্ডে ডাউনলোড করতে চান তাহলে আপনার Link Speed লাগবে 8Mbps.

এভাবে হিসাব হবে।

Byte আর Bit এর সম্পর্ক

নিচের চার্টটি বিট বাইটের মধ্যেকার হিউজ পার্থক্যটি বুঝতে আপনাকে হেল্প করবে।

১ বাইট (byte) = ৮ বিট (bits)
১ কিলোবাইট (KB) = ১০২৪ বাইট
১ মেগাবাইট (MB) = ১০২৪ কিলোবাইট
১ গিগাবাইট (GB) = ১০২৪ মেগাবাইট (MB)
১ টেরাবাইট (TB) = ১০২৪ গিগাবাইট (GB)

পরিশেষে!

আপনি যখন ইন্টারনেট থেকে একটি ফাইল ডাউনলোড করবেন বা একটি ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে তথ্য ট্রান্সফার করবেন তখন আপনি এই বিষয়গুলোর মাঝে তফাত খুঁজে পাবেন; ডেটা ট্রান্সফারের হার বুঝতে পারবেন ক্লিয়ারলি। আপনার ইন্টারনেট কানেকশানের গতি (ডাউনলোড এবং আপলোড) প্রতি সেকেন্ডে মেগাবিট হিসাবে প্রদর্শিত হবে। কিন্তু, আপনি যে তথ্য স্থানান্তর করবে (ডিভাইস টু ডিভাইস) সেটি প্রদর্শিত হবে মেগাবাইট হিসেবে। এখানেই তফাত।

আশাকরি সবকিছু বুঝতে পেরেছেন, যদি না বুঝে থাকেন তাহলে পোস্টটি আরেকবার পড়ুন তাহলেই বুঝে যাবেন।

এই ছিলো MBps ও Mbps এর মধ্যে পার্থক্য। উপরের তথ্য গুলো বিভিন্ন সোর্স থেকে নেওয়া হয়েছে। ধন্যবাদ পড়ার জন্য।

Related Posts