Menu Close

সমাজে নারী অধিকার নিয়ে কিছু কথা!

সমাজে নারী অধিকার নিয়ে কিছু কথা!

হ্যাঁ নারীদের অধিকার চাই, নারীর যে সম অধিকারের কথা বলা হয়, সেই সম-অধিকার’ই দাবি আমার। নারীরা পুরুষদের চেয়ে কম কিসে! নারী ছাড়া কি কোন পুরুষ জাতি চলতে পেরেছে? না পারেনি। পুরুষের সকল কাজে নারীকে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকতে হয় আর সেই আদিকাল থেকেই হয়ে আসছে।তবে নারীর পাশে পুরুষ কেন নয়? কিছু বোকা পুরুষ জাতি আছে যারা মেয়েদের ভাবে তারা শুধুই বাচ্চা পয়দা, ঘর এবং গৃহস্থলির কাজ করার জন্য মেয়ে জাতির জন্ম।

সমাজে বিকৃত মস্তিষ্কের পুরুষ জাতি আছে যারা সুশিক্ষিতা, রুচিশীল, ভদ্র, সুন্দর,স্নাতক পাস মেয়ে বিয়ে করতে চায় কিন্তু বিয়ের পর তার ওয়াইফকে জব করতে দিবেনা। আর হ্যা, অবশ্যই মেয়েটাকে হতে হবে বোকা (শিক্ষিত হলেও চালাক হওয়া যাবেনা, সব কিছু বোঝা যাবে না। কারণ সৃষ্টিকর্তা এই দায়িত্বটা শধু পুরুষদের কেই দিয়েছেন বলেই ধারনা তাদের)। মেয়ে হবে সুশিক্ষিতা স্নাতক পাস কিন্তু চাকরি করবে না, হবে বোকা, আদৌ কি হে পুরুষ জাতি তুমি ঠিক?

নারী অধিকারঃ নারীদের অধিকার চাই!

স্নাতক পাস সুশিক্ষিতা মেয়ে কে আপনি ধরে রাখবেন লোহার শিকল দিয়ে, কতক্ষণ রাখতে পারবেন আটকে? আর একজন স্নাতক পাস মেয়ে যে বোকা হবে না তা কি এই পুরুষ জাতি বোঝে না? এতটা অরুচিকর একজন সুস্থ মানুষ কিভাবে আর কেনই বা হয়! মানুষের ইচ্ছে গুলো এত নিষ্টুর হয়’ই বা কেন!

আচ্ছা, একসাথে কি সব পায় মানুষ মানব-জীবনে? পায় না, সম্ভব ও না। ঘি খেতে চান কিন্তু স্পর্শ করতে চান না; তাই সম্ভব ও না। কারণ একজন স্নাতক পাস মেয়ে কখনোই বোকা হবে না। তারা নিজেদের মত প্রকাশ করতে শিখে যায়। নিজের অধিকার আদায়ের দাবি সম্পর্কি বিষয়াদি তারা পায় টু পায় জানে। একজন স্নাতক পাস করা মেয়ে সমাজের বুকে বুক ফুলিয়ে বাঁচতে নিজেকে সেল্ফ ডিপেন্ডেন্ট করতে চাইবে।

যদি এতই ইচ্ছে থাকে তবে প্রত্যন্ত কোন অঞ্চলের গ্রামের মেয়ে কে বিয়ে করে নিয়ে চলে আসেন। অনেক বোকা হবে।
ওহ আচ্ছা! সে তো স্নাতক পাস হবে না, সুশিক্ষিতা হবেনা। সমাজের বুকে তারে বের করা যাবে না।

আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা

সেদিন যখন সিএনজিতে আসতেছিলাম এক বাবা গর্ব করে বলতেছিলেন আমার দুই ছেলে-মেয়ে। মেয়ে সরকারি চাকরি করে মেয়ের জামাই আর্মির বড় অফিসার। এর মধ্য প্রায় পঞ্চাশ লাখ টাকা দিয়ে ফ্লাট কিনলো আর ছেলে ও একাই বিয়ে করেছে সে যশোর সরকারি চাকরি করে। আমার কোন দুঃখ নাই বলে একগাল হেসে দিলেন তিনি। কতটা সুখি সেই বাবা কাছে থেকে না দেখলে বুঝতাম না। প্রত্যেক সন্তানের বাবাই চাই যে তাদের শুধু ছেলে না মেয়েও এমন কিছু করুক যেন সে বুক ফুলিয়ে তার কথা সমাজের বুকে বলতে পারে।

কিন্তু সব পরিবার কি মেয়েদের পড়ালেখার প্রতি অগ্রহী? জবের প্রতি আগ্রহী? অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় জবের জন্য আলাদা ভাবে অনেকটা সময় দিতে হবে, হয়ত সেটা জব সিলেকশনে বা জব-প্রিপারেশনের জন্য। বেশিরভাগ পরিবারই মেয়ের পিছনে সেই সময় ও অর্থ খরচ করতে নারাজ। আবার অনেকে তো জবের ক্ষেত্রে পুরোই রেস্ট্রিকশন ধরিয়ে দেয়।

আশা করি মেনে চলবেন

সেই অতি অরুচিশীল পুরুষ জাতিকে বলবো, নারীদের আত্নবিকাশের সুযোগ দিন দেখবেন তারা কতদূরে যায়। আমাদের মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) বলেছেন ,”আমি নারীদের পিতা। আমার ছেলে ছিল কিন্তু তারা একজন ও বাঁচে নি। আমার মেয়েগুলা আছে। মেয়েদের সাথে কোমল আচরণ করুন। মেয়েদের বিকাশে সহায়তা করুন। কেননা নারীদের সাথে রাগ দেখালে তারাও রাগ দেখাবেন কিন্তু কোমল আচরণ করুন তারা গলে যাবে। সেই ব্যক্তি আল্লাহর সব চেয়ে প্রিয় যে ব্যক্তি তার স্ত্রীর কাছে প্রিয়।

আমাদের সমাজে অনেক আছেন এমন ভদ্রলোক যারা এমন টা ভাবেন যে মেয়ে তুমি জন্ম নিয়েছো, বাচ্চা জন্ম দিতে, আর ঘর-গৃহস্থলির কাজ করতে। ঘরের বাহিরে তোমাদের পদচারণা নেই। ইসলামেও কি তাই বলেছেন? অবশ্যই না। যথাযত পর্দা মেনে তারা পুরুষদের মত নিজেদের ও বিকাশ করতে পারবে। অনেক পুরুষ আছেন যেমন ঘরের কাজে মেয়েদের কোন সাহায্য সহযোগিতা কে খারাপ বলে মনে করেন। ঘরের কাজ শুধুই মেয়েদের হাতে নিয়জিত…

ভূল নারীদের যদি হাতের কাজের সাহায্য করা যায় তবে তারা বাহিরের বিভিন্ন কাজে অংশ গ্রহন করতে পারতেন। সম্প্রতি চীনে একটা মামলায় আপনারা কি জানেন ঘরের কাজে স্বামি -স্ত্রী কে তালাকের শর্ত ধরে টাকা দেওয়ার রায় ঘোসনা করেছেন। এই রায় চীন সহ বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন জায়গায় সাড়া ফেলেছে। তাই নারীদের সূযোগ দিন সীমার মধ্য। নিজেদের শোষণের ঝালকাঠি থেকে মুক্তি দিন। কোমল ব্যবহার করুন। নারীদের বিকশিত হতে সাহায্য করুন।

পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ। লেখাগুলো শুধুমাত্র একান্তই আমার নিজের চিন্তাধারা থেকে লেখা হয়েছে। কারো খারাপ লাগলে বা এগ্রেসিভ লাগবে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন আশা করছি।

Related Posts